Text size A A A
Color C C C C
পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

নিবন্ধণ সেবাঃ

সমবায় সমিতি আইন’২০০১ (সংশোধিত ২০১৩) এর ০৮ ধারা মোতাবেক সমবায় সমিতি নিবন্ধন করা হয়। এই সেবা পেতে নিমণরূপ পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবেঃ

 

1)     কমপক্ষে ২০ জন বা ততোধিক সদস্য কর্তৃক সমবায় সমিতি বিধিমালা ২০০৪ মোতাবেক নির্ধারিত আবেদন ফরম পূরণ পূর্বক জেলা সমবায় অফিসার বরাবর আবেদন করতে হবে এবং ০৩ (তিন) কপি উপ-আইন সংযুক্ত করতে হবে।

 

2)    সমিতির নামে ১-৩৮৩১-০০০০-১৮৩৬ কোডে ৩০০/- (তিন শত) টাকার নিবন্ধন ফি ট্রেজারী চালানের মাধ্যমে যেকোন সোনালী ব্যাংকে জমা দিতে হবে।

 

3)    সমিতির ০২ (দুই) বছরের খসড়া বাজেট উপস্থাপন করতে হবে।

 

4)     সকল সদস্যগণের জাতীয় পরিচয় পত্র/নাগরিকত্বের সনদের সত্যায়িত কপি সংযুক্ত করতে হবে।

 

5)    উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা কর্তৃক অন্য সমবায় সমিতির সঙ্গে সাংঘর্ষিক হবে না মর্মে প্রত্যয়ন দাখিল করতে হবে।

 

 

 

প্রশিক্ষণ সেবাঃ

 

1)     প্রতিমাসে অত্র দপ্তরের ভ্রাম্যমান প্রশিক্ষণ ইউনিট (১ জন প্রশিক্ষক ও ১ জন সহকারী প্রশিক্ষক) ০৩ (তিন) জন অতিথি বক্তার সমন্বয়ে সমিতি পর্যায়ে প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে।

 

2)    চাহিদা অনুযায়ী বাংলাদেশ সমবায় একাডেমী, কুমিল্লা ও আঞ্চলিক সমবায় শিক্ষায়তন, ফেনী’তে সমবায়ীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়।

 

 

পরিচর্যা ও অডিট সেবাঃ

 

1)     সমবায় সমিতি আইন’২০০১ (সংশোধন ২০১৩) এর ৪৩ ধারা মোতাবেক সমবায় সমিতি সমূহের বাৎসরিক অডিট করা হয়। এর জন্য কোন আবেদন করার প্রয়োজন হয় না।

 

2)    সমবায় সমিতি আইন’২০০১ (সংশোধন ২০১৩) এর ৪৮ ধারা মোতাবেক সমবায় সমিতি সমূহ পরিদর্শন করে সমিতির ভাল মন্দ দিকগুলোকে সদস্যদের নিকট তুলে ধরে পরিচর্যা করা হয়। এক্ষেত্রে নিবন্ধক স্বত:স্ফুর্তভাবে অথবা সমিতি কর্তৃক আবেদনের প্রেক্ষিতে পরিদর্শন করতে পারেন।

 

 

 

বিরোধ নিষ্পত্তিঃ

 

সমবায় সমিতি আইন’২০০১ (সংশোধন ২০১৩) এর ৫০ ধারা মোতাবেক সমবায় সমিতি সমূহের বিরোধ নিষ্পত্তি করা হয়। এক্ষেত্রে সমিতির সদস্য বা স্বার্থ সংশিস্নষ্ট কেউ ১০০/- (একশত) টাকার কোর্ট ফি দিয়ে জেলা সমবায় কর্মকর্তা বরাবর ডিসপুট মামলা দায়ের করতে পারবেন। মামলা গ্রহণের ৬০ (ষাট) দিনের মধ্যে তা নিষ্পত্তি করা হয়। তবে বিশেষ পরিস্থিতিতে আরও ৬০ (ষাট) দিন অতিরিক্ত সময়ের মধ্যে অবশ্যই ডিসপুট নিষ্পত্তি করতে হবে।